“গবেষণা প্রবন্ধগুলো বাংলায় লেখার প্রচলন করতে হবে”- চুয়েট ভিসি

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযু্িক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেছেন, “একুশ ফেব্রুয়ারির আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি বিশ্বের বুকে বাঙালির একটি স্বকীয় অবস্থান তৈরি করেছে।

বাংলা ভাষাকে সর্বস্তরে ছড়িয়ে দিতে হলে আমাদের গবেষণা ও অ্যাবস্ট্রাক্টগুলোকে বাংলায় প্রকাশ করতে হবে। সেজন্য চুয়েটের সকল শিক্ষককে এগিয়ে আসতে হবে। আমাদের তরুণ প্রজন্মকে একুশের মহান চেতনাকে ধারণ করতে হবে।

বাংলা ভাষার ব্যবহারের প্রতি দায়িত্বশীল হতে হবে। তবেই ভাষার প্রতি ও ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা হবে।”

তিনি গতকাল  ২১ ফেব্রুয়ারি (রবিবার), ২০২১ খ্রি. চুয়েট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২১ উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

চুয়েটে জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির সভাপতি এবং পুরকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো. রবিউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডীন ও ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রেজাউল করিম, স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো. মইনুল ইসলাম, যন্ত্রকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহম্মদ, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী এবং মুজিব বর্ষ বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. রণজিৎ কুমার সূত্রধর।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বিভাগীয় প্রধানগণের পক্ষে তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ, প্রভোস্টগণের পক্ষে বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট জনাব সৈয়দ মাসরুর আহমেদ, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র বনিক, কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি জনাব আমিন মোহাম্মদ মুসা, কর্মচারী সমিতির সভাপতি জনাব মো. জামাল উদ্দিন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) জনাব মোহাম্মদ ফজলুর রহমান এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব এটিএম শাহজাহান।

এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিশু-কিশোররা স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে মহান ভাষা শহীদদের স্মরণে দোয়া ও মুনাজাত করা হয়।

এর আগে দিবসটি উপলক্ষ্যে দিনের প্রথম প্রহরে সকাল সাড়ে ৭টায় ক্যাম্পাসের উত্তর গোল চত্ত্বর হতে প্রভাতফেরীর মাধ্যমে দিনব্যাপী কর্মসূচীর শুরু হয়। এতে নেতৃত্ব দেন মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম।

এরপর চুয়েট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। উল্লেখ্য, ‘মুজিব শতবর্ষে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের গুরুত্ব ও তাৎপর্য’ বিষয়ে রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

Invest in Social

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *