রাবিতে ভর্তি পরীক্ষার যোগ্যতা

রাবি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ru rajshahi university

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন ৭ মার্চ দুপুর ১২টা থেকে ১৮ মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত গ্রহণ করা হবে। প্রাথমিক আবেদন বাছাই শেষে ২৩ মার্চ বেলা ১২টা থেকে ৩১ মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত চূড়ান্ত আবেদন করা যাবে।

প্রাথমিক আবেদনের ফি ৫৫ টাকা (মোবাইল ফোন অপারেটরের সার্ভিস চার্জসহ) ও চূড়ান্ত আবেদনের ফি ১,১০০ টাকা (মোবাইল ফোন অপারেটরের সার্ভিস চার্জসহ)।

ভর্তি পরীক্ষা ৩টি (অ, ই, ঈ) ইউনিটে অনুষ্ঠিত হবে। প্রতি ইউনিটে প্রতিদিন ৩ শিফটে; প্রতি শিফটে ১৫ হাজার করে মোট ৪৫ হাজার ভর্তিচ্ছুর পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে।

শুধুমাত্র ২০২০ সালের এইচএসসি/সমমান ও ‘এ’ লেভেল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরাই ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে। ভর্তি পরীক্ষা সকাল ৯:৩০ থেকে ১০:৩০ মিনিট, দুপুর ১২ থেকে ১টা ও বিকেল ৩ থেকে ৪টা, এই ৩ শিফটে অনুষ্ঠিত হবে। মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র অ ইউনিটে আবেদন করতে পারবে।

এই ইউনিটের আওতায় কলা, আইন, সামাজিক বিজ্ঞান ও চারুকলা অনুষদের ২৭টি বিভাগ এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট আছে। আবেদনের জন্য এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.০০ সহ মোট জিপিএ ৭.০০ থাকতে হবে।

বাণিজ্য শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র ই ইউনিটে আবেদন করতে পারবে। এই ইউনিটের আওতায় বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ৭টি বিভাগ ও ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট আছে।

আবেদনের জন্য এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৭.৫০ থাকতে হবে।

বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র ঈ ইউনিটে আবেদন করতে পারবে। এই ইউনিটের আওতায় বিজ্ঞান, কৃষি, প্রকৌশল, জীববিজ্ঞান, ভূবিজ্ঞান, ফিশারীজ এবং ভেটেরিনারি এন্ড এনিমেল সায়েন্সেস অনুষদের ২৬টি বিভাগ আছে।

আবেদনের জন্য এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৮.০০ থাকতে হবে। সকল ইউনিটের জন্য জিসিই ‘ও’ লেভেল পরীক্ষায় ৫টি বিষয়ে এবং ‘এ’ লেভেল পরীক্ষায় অন্তত ২টি বিষয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং উভয় লেভেলে মোট ৭টি বিষয়ের মধ্যে ৪টি বিষয়ে কমপক্ষে ‘বি’ গ্রেড এবং ৩টি বিষয়ে কমপক্ষে ‘সি’ গ্রেড থাকতে হবে। এমসিকিউ পদ্ধতিতে ১ ঘন্টা মেয়াদে ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এতে ৫টি ভুল উত্তরের জন্য ১ নম্বর কাটা যাবে। পরীক্ষায় নূন্যতম পাস নম্বর হবে ৪০। ভর্তি পরীক্ষার তারিখ পরবর্তীতে জানানো হবে।

জানা গেছে, ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষায় ৮০টি বহুনির্বাচনী প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে শিক্ষার্থীদের। তবে ভুল উত্তরের জন্য এবার নেগেটিভ মার্কিং থাকছে। যা অন্যান্যা বারে ছিল না। তাছাড়া এবার এসএসসি ও এইচএসসির জিপিএ এর নম্বরও যোগ হবে না।

Invest in Social

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *