হেফাজত সঠিকভাবে কোরআন পড়ে না: ড. আনোয়ার

ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ডঃ সৈয়দ আনোয়ার হোসেন

হেফাজতের বিরুদ্ধে জেগে উঠতে হবে, অন্যথায় বাংলাদেশ টিকবে না। হেফাজত মুক্তিযুদ্ধ ও নারীবিদ্বেষী, কোরআনের নিহিতার্থ বোঝে না বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ডঃ সৈয়দ আনোয়ার হোসেন

তিনি বলেন, হেফাজতের মুখ থেকে ইসলামের ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ কোনোদিনই শুনিনি। বরং নারীদের ‘তেঁতুল’ হিসেবে অভিহিত করেছিলেন প্রয়াত আহমদ শফী।

ভাস্কর্য ভাঙার দাবি উদ্ভট। বিশ্বে সব মুসলিম দেশেই ভাস্কর্য আছে। হেফাজত সঠিকভাবে কোরআন পড়ে না। ইসলাম যা বলে, হেফাজত তা বোঝে না।

তিনি বলেন, ধর্মান্ধরা পরাজিত শক্তি। বাংলাদেশ যদি পরাজিত শক্তির কাছে হার মানে, তাহলে তা চরম দুর্ভাগ্য হবে। তাই ধর্মান্ধদের আবারও পরাজিত করতে হবে।

ধর্মান্ধ হেফাজতের বিরুদ্ধে সামাজিক লড়াই অত্যাসন্ন। ইসলামকে সঙ্গে নিয়ে ধর্মান্ধদের বিরুদ্ধে গোটা দেশ এক হতে হবে।

ড. আনোয়ার বলেন, একসময় জিয়া-এরশাদ-খালেদা ধর্মান্ধদের দুধ-কলা দিয়ে পুষেছিলো আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধশক্তি হিসেবে। অথচ সেই ধর্মান্ধদের সঙ্গে এখন আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক সখ্য করেছে।

হেফাজতের দাবিতে পাঠ্যপুস্তক পরিবর্তন করেছে। ধর্মান্ধদের উত্থানের পেছনে জিয়া-এরশাদ-খালেদার মতো সমভাবে বর্তমান সরকারও দায়ী।

তার মতে, আওয়ামী লীগ দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য তৎপর আছে, কিন্তু অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি দিয়েই সোনার বাংলা হবে না।

বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, সোনার বাংলা গড়তে সোনার মানুষ চাই। এখন এদেশের মানুষের মধ্যে সোনা কতোটুকু আছে তা প্রশ্নবিদ্ধ। বর্তমান আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগ নয়, তারা এখন আদর্শিক বন্ধ্যাত্বে ভুগছে।