রাবিপ্রবিতে স্টারস অব সাকসেস ক্লাবের আয়োজনে ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

RMSTU webinar

৩য় আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন ৩০ তম বিসিএস পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকারী জনাব সুশান্ত পাল (উপকমিশনার বাংলাদেশ কাস্টমস)।

সেমিনারটি সরাসরি শুশান্ত পালের ফেইসবুক পেইজ থেকে ১৭জুলাই, রাত ৯.০০টায় স্ট্রিমিং করা হয়।

স্টারস অব সাকসেস ক্লাবের আয়োজকরা জানিয়েছেন চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে অনলাইনে সরাসরি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সেমিনারটি আয়োজন করতে হয়েছে ।

সেমিনারে জনাব সুশান্ত পাল রাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন।

জীবন,সংগ্রাম ও শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন অজানা প্রশ্নের উত্তর,বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন।

বিশ্বে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান নিয়ে এক প্রশ্ন উত্তর পর্বে তিনি বাংলাদেশের পলিসি গঠনকারীর দৃষ্টি আর্কষন করেন।

করোনা পরিস্থিতিতে বেঁচে থাকাই বড় সাফল্য উল্লেখ করে পরিবারের পাশাপাশি অভাবী মানুষের পাশে থেকে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে জীবন যাপন করতে পরামর্শ প্রদান করেন।

শুরু থেকেই স্টারস অব সাকসেস ক্লাব তরুনদের বিভিন্ন দিক নির্দেশনা,সফলতার উপায় ও আদর্শ উদ্দেশ্য নিয়ে যাত্রা শুরু করে।

বিভিন্ন বিষয়ের পাশাপাশি আধুনিক পৃথিবীর প্রতিযোগিতায় মানুষের কর্মদক্ষতার বিষয়ে শিক্ষা প্রদান করে যাচ্ছে (এস ও এস) ক্লাব।

মেধাবী,মানসিক শক্তিতে বলিষ্ঠও জাতির কর্ণধার তৈরিতে এ ক্লাবের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ।

বিভিন্ন সময়ে আয়োজিত প্রোগ্রামে ক্লাবটি যেমন পেয়েছে প্রশংসা, তেমনি হয়ে উঠেছে শিক্ষার্থীদের নির্ভরতার প্রতীক।

এই ধারাবাহিকতায় স্টারস অব সাকসেস ক্লাব গতকাল ৩য় বারের মতো আয়োজন করেছিলো ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার।

প্রথম সেমিনারে এ ক্লাবের স্বপ্নদ্রষ্টা রাবিপ্রবির সহযোগী অধ্যাপক জনাব রণজ্যোতি চাকমা নিজেই তাঁর ব্যক্তিগত জীবন ও অভিজ্ঞতা থেকে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।

তাই ৩য় বারের মতো সেমিনার আয়োজনে সবার আগ্রহ ছিলো অসীম। ক্লাবের মূল পরিকল্পনাকারী, স্বপ্নদ্রষ্টা ও উপদেষ্টা হিসেবে জনাব রণজ্যোতি চাকমা বিশেষ ভূমিকা পালন করেন।

স্টারস অব সাকসেস মূলত একটি অরাজনৈতিক ক্লাব।

জাতি,ধর্ম,বর্ণ, নির্বিশেষে সবাই মিলে আ্ত্ন- উন্নয়ন, জাতির উন্নয়ন ও স্বনির্ভর বাংলাদেশের সচেতন নাগরিক হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছে।

রাবিপ্রবি (এস ও এস) ক্লাবের প্রত্যেক সদস্যদের তাই একটাই আশা আগামীতে দেশ ও জাতির উন্নয়নে কাজ করে যাওয়া।