খুবিতে যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর সাথে ঘটে যাওয়া যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। ‘যৌন নিপীড়নের সুষ্ঠু বিচার, ভুক্তভোগীর অধিকার’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীরা।

প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষার্থী যৌন নিপীড়নের বিচারের দাবিতে রোববার (১০ এপ্রিল) সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের হাদি চত্বরে এ মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন।

এ সময় শিক্ষার্থীরা এমন ন্যক্কারজনক ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি এবং ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।
ভবিষ্যতে যেন এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় সে ব্যাপারে সকলের সসহযোগিতা কামনা করেন শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী এক শিক্ষার্থী মো. মুশফিকুর রহমান বলেন, ‘এ ঘটনায় আমরা ইতিমধ্যে থানায় মামলা করেছি। আমরা এর সঠিক বিচার চাই। মামলায় লড়তে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে পূর্ণ সহযোগিতা দাবি করছি।
এরকম ঘটনা ঘটে যাওয়ার দায়ভার আমাদের সবার। সব ধরনের যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে আমরা কঠোর অবস্থান নিচ্ছি। পাশাপাশি আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রশাসনের পূর্ণ সহযোগিতা কামনা করছি।’

মানবন্ধনে আরেক ব্যক্তি তাফান্নুম সাদাফ বলেন, ‘বাংলাদেশে এ ধরনের ঘটনায় প্রায়ই দেখা যায় মূল সত্যটাকে ম্যানিপুলেট করা হয়। এখানে দাঁড়ানোর মূল কারণ ক্যাম্পাসের সবাইকে সঠিক তথ্য জানানো।

কারণ, বেশ কিছুদিন ধরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুক্তভোগীকে নানানভাবে দোষী করা হচ্ছে। এমনকি তার বাবাকেও হুমকি দেয়া হচ্ছে। আমরা এর সুষ্ঠু তদন্ত চাই এবং দ্রুত বিচার চাই।’

এসময় বক্তারা আরও বলেন, ‘আমাদের বোনের সাথে যে শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটেছে এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। একইসাথে উক্ত ঘটনার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান ঘোষণা করছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য কর্তৃপক্ষের সর্বোচ্চ ভূমিকা নিশ্চিতকরণের দাবি জানাই। একইসাথে উক্ত ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, গত শনিবার (২ এপ্রিল) খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিনের এক ছাত্রের বিরুদ্ধে গোপনে এক ছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করার অভিযোগ ওঠে।

মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) ভোর রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাকে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে শনাক্ত ও আটক করে। এরপর তাকে গণপিটুনি দেওয়া হয়। তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে আটকে রাখেন শিক্ষার্থীরা।

পরে সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রবিষয়ক পরিচালকের হস্তক্ষেপে অভিযুক্তকে হল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা অফিসে এনে রাখা হয়। পরবর্তীতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে অভিযুক্ত শিক্ষার্থীকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় গত বুধবার (৬ এপ্রিল) ভুক্তভোগী ছাত্রী এবং তার সহপাঠীরা অভিযুক্তের বিরুদ্ধে হরিণটানা থানায় মামলা করেন।

আরো পড়ুন খুবি ছাত্রীর গোপন ভিডিও ধারণের অভিযোগে এক ছাত্রকে গণপিটুনি